আমরা খুব সকালে তেমন উঠি না। সকাল ৮-১০টা বেজে যায় ঘুম থেকে উঠতে। স্টার্ট-আপ দুনিয়াতে ৫০/৩০/১০/১০ নিয়ম নামে একটি বিষয় বেশ জনপ্রিয়। হবু উদ্যোক্তারা ৫০/৩০/১০/১০ নিয়ম অনুসরণ করে যেমন সকালে ওঠেন, তেমনি যে কোনও কাজকেও গুছিয়ে নেন।f219d1be6f047c83bea8b9d588f8fbfd

৫০/৩০/১০/১০ নিয়মটি কি?
৫০% লক্ষ্য অর্জনে আগ্রহ
৩০% প্রস্তুতি
১০% প্রচেষ্টা
১০% লাক

৫০% লক্ষ্য অর্জনে আগ্রহ
আমরা নিজেরা পরিবর্তন চাই, কিন্তু সেভাবে কাজ করতে চাই না। আমরা সফল হতে চাই, কিন্তু প্রতিদিন ৯-৫টা চাকরি করে অন্যের জীবন যাপন কাটাই। আমরা ভাবতে চাই, কিন্তু আসলে ভাবতে পারি না।
আপনি যদি সকালে না ওঠেন, তাহলে আপনি শখের কোন কাজে সময় দিতে পারবেন না। যেমন লেখালেখি।
আপনি যদি না লিখেন, তাহলে লেখক হতে পারবেন না। বই তৈরি করতে পারবেন না।
আপনি যদি লেখক না হন, তাহলে স্বপ্ন বাস্তবে পরিণত করতে পারবেন না।

আমাদের মনের আসলে দুটো ভাগ। একটি ভাগ হতাশ, যার জোর বেশি; আরেকটি ভাগ দুর্বল, যে কিনা দারুণ আলোকিত। এই অংশই আমাদের জীবনে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যদি আমাদের লক্ষ্য সম্পর্কে অবসেসড না হই, তাহলে আমাদের দ্বারা কোন কাজই সম্ভব নয়।

৩০% প্রস্তুতি
ডিটারমিনেশন বা আগ্রহ বা অবসেশন আমাদের তো সকালে ঘুম থেকে ওঠাবে, এরপরে কি হবে?
আমরা সকালে কি করবো তা কি আগে থেকে ঠিক করে রাখি? ঘুম থেকে ওঠে মুখস্থ দাঁত ব্রাশ করে অফিসে দৌড়। সহজ তাই না?
একটু আগে সকালে ওঠার জন্য আমাদের একটু অভ্যাসে পরিবর্তন আনতে হবে। টানা ২১দিন যে কোনও কাজ করে গেলে, তা অভ্যাসে পরিণত করা সহজ। সকালে ওঠার জন্য আপনি যদি লেখক হতে চান, তাহলে আগের দিন পরিকল্পনা করতে হবে। প্রতিদিন নিজেকে একটি টার্গেট দিতে হবে, আজ কতটা লিখবো?

১০% প্রচেষ্টা
সকালে ওঠার জন্য বিছানায় মোবাইল নিয়ে যাওয়া যাবে না কখনই। সকালে ঘুম থেকে ওঠে মোবাইল হাতে নেয়া পাপ ভাবতে হবে।

১০% লাক
লাক বা ভাগ্য হচ্ছে অংকের মত। ২+২ সমান ৪ হবে, ৪ হওয়ার জন্য চারপাশ আপনার মত করে সাজিয়ে তারপরে ৪ উত্তরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

-- Stay cool. Embrace weird.
Total 162 views. Thank You for caring my happiness.

Comments

comments